মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কার্যবিবরণী ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত

  উপজেলা পরিষদের নভেম্বর’১৪ মাসের মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভার কার্যবিবরণী।

 

 

 

সভাপতি   :     জনাব মোঃ রশিদুল ইসলাম,

                      চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ,

                      কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী।

স্থান        :     উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ, কিশোরগঞ্জ।

তারিখ     :     ২৪ নভেম্বর, ২০১৪

সময়       :     বেলা-৩.০০ ঘটিকা।

 

                  সভায় উপস্থিত/অনুপস্থিত সদস্যবৃন্দের নামের তালিকা পরিশিষ্ট ‘‘ক’’ তে দেখানো হলো।

 

                  সভাপতি উপস্থিত সকল সদস্যকে স্বাগত জানিয়ে সভার কাজ শুরু করেন। অতঃপর তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সভা পরিচালনার জন্য অনুরোধ জানান।  

            সভাপতির অনুরোধক্রমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভা পরিচালনার দায়িত্ব নিয়ে গত সভার কার্যবিবরণী পাঠ করে শোনান। শুনানী অন্তে কোন সংশোধনী না থাকায় তা সর্ব সম্মতিক্রমে দৃঢ়ীকরণ করা হয়।

বিভাগীয় আলোচনা ও গৃহীত সিদ্ধান্ত সমূহঃ

ক্রঃ নং

বিভাগ/দপ্তর

আলোচনা

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

০১

কৃষি বিভাগ

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সভায় জানান যে- বর্তমানে ধান কাটা মৌসুম শুরু হয়েছে এবং আলু ও গম চাষ চলছে। কৃষকদের নিকট কৃষি উপকরণ কার্ড বিতরণ অগ্রগতি প্রায় ৮০%। স্বল্প সময়ের মধ্যে কৃষি উপকরণ কার্ড বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন হবে মর্মে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নভেম্বর/১৪ মাসের মধ্যে কৃষি উপকরণ কার্ড তৈরী ও বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে অনুরোধ জানানো হয়।

উপজেলা কৃষি  অফিসার

 

 

 

০২

স্বাস্থ্য বিভাগ

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তার পক্ষে সভায় উপস্থিত ডাঃ ময়নুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসারের সাথে উপস্থিত সকলের পরিচিতি হয়। প্রতিনিধি সভায় জানান যে, বর্তমানে স্বাস্থ্য বিভাগের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে। কোন সমস্যা নাই।

এ প্রসংগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান যে, এ উপজেলার চিকিৎসাসুবিধা বঞ্চিত জনসাদারণের চিকিৎসা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে আগামী ০৫ ডিসেম্বর,২০১৪ তারিখ ‘কিশোরগঞ্জ ডায়াবেটিক হাসপাতালে’ চক্ষু বিভাগ খোলা হবে। ঢাকা বারডেম হাসপাতালের রেজিস্ট্রার ডাঃ মোঃ ফেরদৌস হোসেন, এমবিবিএস, এফসিপিএস (চক্ষু) চিকিৎসা সেবা প্রদান করবেন। তিনি প্রত্যেক মাসের ১ম ও ৩য় সপ্তাহের শুক্রবার বসবেন। এ উপজেলার চক্ষু রোগীরা যাতে বাহিরে না গিয়ে আমাদের ডায়াবেটিক হাসপাতালে নির্দিষ্ট তারিখে এসে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করে, সে বিষয়ে ব্যাপক প্রচারণার জন্য সম্মানিত ইউপি চেয়ারম্যানগণকে অনুরোধ জানান।

বিষয়টি বহুল প্রচারের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন সভায় আলোচনা সহ চক্ষু রোগীদেরকে প্রত্যেক মাসের ১ম ও ৩য় সপ্তাহের শুক্রবার রোগী প্রেরণের জন্য সম্মানিত ইউপি চেয়ারম্যানগণকে অনুরোধ করা হয়।

সকল ইউপি চেয়ারম্যান

০৩

প্রকৌশল বিভাগ

উপজেলা প্রকৌশলীর প্রতিনিধি সভায় জানান যে, এখনও ২০১৪-২৯১৫ অর্থবছরের এডিপি’র বরাদ্দ পাওয়া যায় নাই। বরাদ্দ পাওয়া মাত্রই সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করা হবে। বর্তমানে দাপ্তরিক কোন সমস্যা নাই।

বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা  

প্রকৌশলী, কিশোরগঞ্জ

 

০৪

মৎস্য বিভাগ

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সভায় জানান যে, মৎস্যচাষীদের মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। কোন সমস্যা নাই।  

প্রশিক্ষণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য উপজেলা মৎস্য অফিসারকে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা

০৫

শিক্ষা বিভাগ

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান যে, গত ২৩ নভেম্বর’১৪ তারিখ থেকে ২০১৪ সালের পিএসসি পরীক্ষা শুরু হওয়ার কারণে উপজেলা শিক্ষা অফিসার সভায় অনুপস্থিত আছেন। উক্ত পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে গ্রহণের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানান।

 

প্রাথমিক সমাপনি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

উপজেলা    শিক্ষা অফিসার

০৬

প্রাণিসম্পদ অফিস

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার সভায় জানান যে, বর্তমানে দাপ্তরিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে, কোন সমস্যা নাই।

এ প্রসংগে চেয়ারম্যান, পুটিমারী ইউপি সভায় জানান যে, শীতকালে গরুর ক্ষুরা রোগ দেখা দেয়। ক্ষুরা রোগ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার জানান যে, একটি শিশিতে ১০০টি গরুর ভ্যাকসিন থাকে। ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য তারিখ/স্থান নির্দ্ধারণ করে দেয়া হবে। উক্ত তারিখ/নির্দিষ্ট স্থানে ১০০টি গরু একত্রিত করার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানগণকে অনুরোধ জানান।   

ক্ষুরা রোগের ভ্যাকসিন প্রদানের তারিখ/স্থানে ১০০টি গরু একত্রিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও ইউপি চেয়ারম্যান সকল

০৭

পরিবার পরিকল্পনা অফিস

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সভায় জানান যে, বিভাগীয় কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে। কোন সমস্যা নেই। শিশুদের জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম নিশ্চিত করার জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ের পরিবার কল্যাণ সকল কর্মীদেরকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এ বিষয়ে সহযোগিতা করার জন্য তিনি ইউপি চেয়ারম্যানগণকে অনুরোধ জানান।

“শিশুর জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন নিশ্চিত করার বিষয়ে সহযোগিতা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ও ইউপি চেয়ারম্যান

০৮

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর

উপ-সহকারী প্রকৌশলী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল সভায় জানান যে, বিভাগীয় কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে কোন সমস্যা নেই। তিনি আরও জানান যে, আরডিআরএস সংস্থা কর্তৃক জরীপকৃত ২২,৭১৯টি পরিবারের মধ্যে ইতোমধ্যে ২,২১১টি পরিবারে ল্যাট্রিন নির্মাণ করা হয়েছে । এতে এ উপজেলার স্যানিটেশনের অগ্রগতির হার ৬৮.৮৩% ভাগ। অবশিষ্ট ২০,৫০৮টি পরিবারের মধ্যে কিভাবে স্যানিটারী লেট্রিন স্থাপন করা যায়, সে বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

প্রসংগক্রমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান যে, গত ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে এডিপি’র ৮৯০সেট লেট্রিন বিতরণের তালিকা যাচাই করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হলেও তা অদ্যাবধি পাওয়া যায় নাই। তিনি আরও বলেন যে, সরকারের লক্ষ্য অর্জনে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে। অবশিষ্ট ২০,৫০৮টি পরিবারের মধ্যে সামর্থবান ব্যক্তিদেরকে মোটিভেশনের মাধ্যমে প্রয়োজনে চাপ প্রয়োগ করে, এলজিএসপি-২ প্রকল্প হতে এবং এডিপির অর্থায়নে স্যানিটেশন কার্যক্রম গ্রহণের জন্য সকল ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ জানান।

বড়ভিটা, পুটিমারী ও রণচন্ডী ইউনিয়নে লেট্রিন বিতরণের তালিকা যথাশীঘ্র সম্ভব যাচাই করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য উপ সহকারী প্রকৌশলী (জনস্বাস্থ্য) কে অনুরোধ করা হয় এবং কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এলজিএসপি-২ ও এডিপি প্রকল্পের আওতায় স্যানিটেশন কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

উপ সহকারী প্রকৌশলী (জনস্বাস্থ্য) ও সকল ইউপি চেয়ারম্যান

 

০৯

বিআরডিবি (একটি বাড়ি, একটি খামার প্রকল্প)

উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা সভায় অনুপস্থিত থাকায় উক্ বিভাগের কার্যক্রমের অগ্রগতি সম্পর্কে জানা গেল না।

সভায় উপস্থিত জন্য সঙশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার

১০

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সভায় জানান যে, সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

প্রসংগক্রমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন যে, গত সভায় ‘ডিজিটাল  বাংলাদেশ গড়ে তোলার রুপকল্প-২০২১’ বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে সরকার শিক্ষাক্ষেত্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম ও শিক্ষকদের তৈরি ডিজিটাল কনটেন্ট কার্যক্রমে গতি সঞ্চার তথা বিষয়টি আরও কার্যকর করার লক্ষ্যে উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমের অগ্রগতি ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের সাথে সভা করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান যে, কয়েক দিন পরেই বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হবে। বিধায় আগামী ২০১৫ সালের ১ম সপ্তাহে বিষয়টি নিয়ে সভা করা হবে মর্মে আশ্বাস প্রদান করেন।

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয় এবং  ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম করার লক্ষ্যে প্রধানগণের সাথে মত বিনিময় সভার আয়োজন করার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার


 

 

১১

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সভায় জানান যে, ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে মাতৃত্বভাতা প্রদানের লক্ষ্যে নতুন করে সুবিধাভোগীর তালিকা দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল কিন্তু মাগুড়া ও পুটিমারী ইউপি হতে এখনো তালিকা পাওয়া যায় নাই। তিনি জরুরী ভিত্তিতে দাখিল দাখিল করার জন্য সভায় অনুরোধ জানান  এবং ২০১৫ সালের জানুয়ারি-ডিসেম্বর চক্রের জন্য ভিজিডি সুবিধাভোগী বাছাইয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যান বলেন যে, ভিজিডি কার্ড প্রদানের কথা বলে অনেক ইউপি সদস্য দুঃস্থ লোকদের নিকট থেকে টাকা নেয় বলে জনশ্রুতি আছে। বিধায় তিনি লটারীর মাধ্যমে ভিজিডি সুবিধাভোগী নির্বাচনের পরামর্শ দেন।

২০১৪-২০১৪ অর্থবছরের মাতৃত্বভাতা ভোগীর তালিকা জরুরী ভিত্তিতে দাখিল করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করা হয় এবং ভিজিডি সুবিধাভোগী লটারীর মাধ্যমে বাছাইয়ের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সকল ইউপি চেয়ারম্যান -কে অনুরোধ করা হয়।

১) উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা

২) সকল ইউপি চেয়ারম্যান

১২

ত্রাণ শাখা

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সভায় জানান যে- বর্তমানে দাপ্তরিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলছে। তিনি সভায় জানান যে, বড়ভিটা ও পুটিমারী ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভিজিএফ এর (ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা) অগ্রাধিকার তালিকা অদ্যাবধি পাওয়া যায় নাই। মাননীয় সংসদ সদস্য, নীলফামারী-০৪ এর অনুকুলে  গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা) কাজের জন্য বরাদ্দকৃত ১৫০.০০ মেঃটন এর বিপরীতে ০৮টি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে এবং প্রকল্প কাজের জন্য ইতোমধ্যে ৫০% ভাগ খাদ্যশষ্য ছাড়করণ করা হয়েছে এবং গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণা-বেক্ষন (টিআর) প্রকল্পের জন্য ২০০.০০ মেঃ টন এর বিপরীতে ৩০টি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। গৃহীত প্রকল্পের কাজের জন্য অগ্রীম হিসেবে ২৫% ভাগ খাদ্যশষ্য ছাড়করণ করা হয়েছে। নীলফামারী-০৩ নির্বাচনী এলাকার মাননীয় সংসদ সদসের অনুকুলে কাবিখা প্রকল্পের আওতায় ৬০.০০ মেঃটনের বিপরীতে ০৬টি প্রকল্প এবং টি.আর প্রকল্পের আওতায় বরাদ্দৃত ৬০.০০ মেঃটনের বিপরীতে ৫৯টি প্রকল্প জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। অনুমোদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরও জানান যে, টি.আর ও কাবিখা (সাধারণ) প্রকল্পের আওতায় প্রাপ্ত বরাদ্দ উপ-বিভাজন করে ইতোমধ্যে সকল ইউপিতে প্রেরণ করা হয় এবং বিভাজন মোতাবেক পুটিমারী ও কিশোরগঞ্জ ইউপি এখনও প্রকল্প দাখিল করেন নাই। ফলে প্রকল্পসমূহ অনুমোদনের জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর প্রেরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। এমতাবস্থায়, জরুরী ভিত্তিতে বিভাজন মোতাবেক প্রকল্প দাখিল করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ জানান। তিনি আরও বলেন যে -অতিদরিদ্র কর্মসংস্থান কর্মসূচি’র ওয়েজ/নন ওয়েজ প্রকল্পের কাজ আগামী ২৫/১১/২০১৪ খ্রিঃ তারিখ থেকে আরম্ভ করার জন্য সকল ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ জানান।

সাধারণ কাবিখা/টিআর এর প্রকল্পের তালিকা দ্রুত দাখিল করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করা হলো।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার ও সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান

১৩

বিবিধ-১

চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী সভায় জানান যে, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় , স্থানীয় সরকার বিভাগ, উপজেলা-১ শাখার ১৪.০৮.২০১৪ খ্রি. তারিখের ৪৬.০৪৬.০১১.০০.০০.০০৪.২০১৪.৭৫১ নং স্মারকে মোতাবেক উপজেলা পরিষদের রাজস্ব খাতে সৃজিত ‘অফিস সহায়ক’ (এমএলএসএস) পদে অস্থায়ীভাবে নিয়োগের ছাড়পত্র পাওয়া গেছে। উক্ত ছাড়পত্র আগামী ০৬ মাস পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এ বিষয়ে অন্যান্য উপজেলায় নিয়োগ সংক্রান্ত কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। এমতাবস্থায়, তিনি পরিষদের সিদ্ধান্ত কামনা করেন।

বিষয়টি নিয়ে সভায় বিস্তরিত আলোচনান্তে সকল বিধি-বিধান প্রতিপালন সাপেক্ষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যানের অফিসে ‘অফিস সহায়ক’ নিয়োগের প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার


 

 

১৪

বিবিধ-২

ক) উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান যে, জরুরী প্রয়োজনে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিল থেকে হলরুমের ককলেজ মেরামত বাবদ ৮০০/-টাকা, উপজেলা পরিষদের আবাসিক এলাকার বাসা নং-০৯ এর লেট্রিন মেরামত বাবদ-৭,৬৮৯/-টাকা, উপজেলা সমাজসেবা অফিসের লেট্রিন মেরামত বাবদ-৪,৫৬০/- টাকা, পূর্বে ক্রয়কৃত ০২টি আইপিএস এর ঢাকনা বাবদ-২,৬৪০/- টাকা, উপজেলা নির্বাহী অফিসের এয়ার ফ্রেশনার ও এ্যারোসল ক্রয় বাবদ-৭৫০/- টাকা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের রুমে আয়না ক্রয় বাবদ-১,৫৬০/-টাকা, স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন ব্যবহার করার বিষয়ে সমস্ত উপজেলায় ব্যাপক প্রচারের জন্য মাইকিং বাবদ-২,৭০০/-টাকা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহোদয়ের অফিসে ব্যবহারের জন্য রুম হিটার ক্রয় বাবদ-২,৩০০/-টাকা ইতোমধ্যে ব্যয় করা হয়েছে। বর্ণিত ব্যয়সমূহ তিনি অনুমোদনের জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

খ) তিনি আরও জানান যে, উপজেলা পরিষদের অক্টোবর/১৪ মাসের মাসিক সভার সিদ্ধান্তক্রমে আবাসিক এলাকায় ইতোপূর্বে রোপিত লিচু বাগান পরিচর্চা ও সবজি বাগানের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। গৃহীত প্রকল্পে মোট ৩১.৫০০/-(একত্রিশ হাজার পাঁচশত) টাকা ব্যয় করা হয়েছে। উক্ত ব্যয়িত অর্থ উপজেলা পরিষদের তহবিল থেকে প্রদানের জন্য অনুরোধ জানান।

গ) উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরও জানান যে, উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থিত মরা গাছ উত্তোলনের বিষয়ে উপজেলা পরিষদের সিদ্ধান্তক্রমে স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিপত্রের আলোকে গঠিত উপজেলা নিলাম কমিটির সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে মরাগাছপ্রকাশ্য নিলামে বিক্রয় করা হয়েছে। যার বিক্রয় মূল্য-১০,০৫০/- টাকা। বিক্রয়মূল্য অনুমোদিত হলে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য জেলা প্রশাসক, নীলফামারী বরাবর প্রেরণ করা যায়।

ক) উপস্থাপিত ব্যয়সমূহ যথাযথ হওয়ায়  তা উপজেলা রাজস্ব তহবিল থেকে পরিশোধের  সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

খ) রাজস্ব তহবিল থেকে লিচু বাগান ও সবজি বাগানের পরিচর্চা প্রকল্পে ৩১,৫০০/-(একত্রিশ হাজার পাঁচশত) টাকা   ব্যয় করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

গ) উপজেলা পরিষদের চত্বরে অবস্থিত মরাগাছ প্রকাশ্য নিলামে ১০,০৫০/-(দশ হাজার পঁঞ্চাশ) টাকায় বিক্রয় সংক্রান্ত বিষয়টি সর্ব সম্মতিক্রমে অনুমোদন দেয়া হলো এবং চূড়ান্ত অনুমোদনের প্রয়োজনীয়  ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুরোধ জানানো হয়।

চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার

 ১৫

বিবিধ-৩

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান যে, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যানদ্বয় গত জুলাই-অক্টোবর/১৪ মাসের ডি.এ বাবদ প্রত্যেকে ১২,০০০/-(বার হাজার) টাকার বিল দাখিল করেছেন। দাখিলকৃত বিল সভায় উপস্থাপন করেন এবং সিদ্ধান্ত প্রদানের জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

সভায় বিস্তারিত আলোচনান্তে উপজেলা পরিষদের ভাই-চেয়ারম্যান দ্বয়ের জুলাই-অক্টোবর/১৪ মাস পর্যন্ত দাখিলকৃত ডি,এ বিল সর্ব সম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয় এবং বিধি মোতাবেক প্রদানের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অনুরোধ করা হয়।

উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার

১৬

বিবিধ-৪

উপজেলা প্রকৌশলীর প্রতিনিধি সভায় জানান যে, বিগত সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপজেলা পরিষদের আবাসিক ভবনসমূহ মেরামত/সংস্কারের জন্য পৃথক পৃথকভাবে প্রাক্কালন করা হয়েছে। প্রাক্কলনে দেখা যায়- সর্ব মোট-               টাকা উপজেলা রাজন্ব তহবিল থেকে ব্যয় করা হলে বাসাগুলি বসবাসযোগ্য হবে। এমতাবস্থায়, প্রস্তুতকৃত প্রাক্কলন অনুমোদনের জন্য সভায় অনুরোধ জানান।

উপজেলা প্রকৌশলী কর্তৃক সভায় উপস্থাপিত প্রাক্কলন অনুমোদন দরা হয় এবং উপজেলা রাজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

উপজেলা চেয়ারনম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রকৌশলী।

 

 

                 

       সভায় আর কোন আলোচনা না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

                                                                                                                                                      

 

 

                                                                                                                 (মোঃ রশিদুল ইসলাম)

                                                                                                                         সভাপতি

                                                                                                                             ও

                                                                                                             চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ

                                                                                                                কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী।